মুঘলদের মজার কিছু তথ্য। Interesting facts about Mughals.

interesting facts about mughals
By Unknown – 1, Public Domain, https://commons.wikimedia.org/w/index.php?curid=32092079

আমাদের ভারতীয় উপমহাদেশের ইতিহাস অনেকটা মুঘলদের হাতেই গড়া। তাজমহল থেকে রাস্তাঘাট অথবা লালকেল্লা অথবা যেকোন বড় বড় মধ্যযুগীয় স্থাপনাতেই দেখা যায় মুঘলদের হাতের ছোঁয়া। যারা আমাদের এই উপমহাদেশে একটা মিশ্রিত জাতের জন্য শাসন ব্যবস্থার বুৎপত্তি করেছিল তাদের ব্যাপারে আমরা কতটুকুই বা জানি? আজকে এই আর্টিকেলে আমি আপনাদের মুঘলদের ব্যাপারে অজানা কিছু কথা নিয়ে আলোচনা করব।

 

১। মুঘলরা নিজেদের বাহিনীতে বড় হাতি ও উটকেও কাজে লাগাতো। এটা মুঘল যোদ্ধাদের একটা বড় কৌশল ছিল। তারা শুধু হাতি, ঘোড়া এবং উটের পিঠে চরতই না এরা এই প্রাণীদেরকে প্রশিক্ষণ  দিত যুদ্ধের জন্য। মুঘলদের হাতি, উট, ঘোড়া ইত্যাদিও অস্ত্র ও ঢালে সজ্জিত থাকতো।

২। সৈন্যরা রাজ্য চালাতো। আধুনিক যুগের সেনা শাসিত সরকারের মতই মুঘলদের শাসন ব্যবস্থাও ছিল সেনা শাসিত। সেনা বাহিনীর সদস্যরাই রাজ্য চালনার বিভিন্ন দায়িত্ত্বে থাকতো।

৩। মুঘল শাসনের সূচনা করেন সম্রাট বাবর। আফগানিস্তানে জন্ম ও চেঙ্গিস খানের বংশধর বাবর ভারতীয় উপমহাদেশে মুঘল সম্রাজ্যের সূচনা করেন। তিনি সফল হওয়ার আগে ৪ বার ভারতবর্ষ আক্রমন করেন।

৪। সম্রাট বাবর নিজে থেকে ভারত আক্রমন করেননি। তাকে লোধি সম্রাজ্যের অবসান ঘটানোর জন্য ভারতবর্ষ আক্রমন করতে আহ্বান জানান রানা সিংহ, আলম খান লোধি, দৌলত খান লোধি। বাবর ইব্রাহিম লোধিকে পানিপথের প্রথম যুদ্ধে পরাজিত করেন।

৫। শাহানশা আকবর মাত্র ৯ বছর বয়সে গজনীর গভর্নর হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। আকবরের বাবা হুমায়ুন তখন মৃত কিন্তু হুমায়ুনের বিশ্বস্ত বৈরাম খাঁ তখন আকবরের অভিভাবক ছিলেন যখন তিনি গভর্নর হিসেবে নিযুক্ত হন।

৬। সম্রাট আকবর দ্বীন এ ইলাহি নামক একটি ধর্মের সূচনা করেন। যার অরথ “ঈশ্বরের ধর্ম”। এটি সকল ধর্মের মিশ্রনে তৈরি একটা ধর্ম ছিল।

৭। আকবর যুদ্ধক্ষেত্রে সবার প্রথম রকেটের ব্যবহার করেন।

৮। বিখ্যাত মুঘল সম্রাজ্ঞী নুরজাহান ছিল সম্রাট জাহাঙ্গীরের ২১ তম স্ত্রী। তিনি প্রচণ্ড ক্ষমতাশালী রানি ছিলেন। প্রকৃতপক্ষে তিনিই সম্রাট জাহাঙ্গীরের জীবনের শেষ ১৬ বছর মুঘল সম্রাজ্য শাসন করেন।

৯। সম্রাট সাজাহানের শাসনকালের ৩০ বছরকে মনে করা হয় মুঘল স্থাপত্যশৈলীর স্বর্ণযুগ হিসেবে। এই সময় তিনি তাজমহল, মতি মসজিদ, লাল কেল্লা, লাহোর কেল্লা ইত্যাদি তৈরি করেন।

১০। মুঘল সম্রাট আওরঙ্গজেব তার বাবা শাহজাহানকে বন্দী করেন এবং তার ভাইকে হত্যা করেন ক্ষমতায় যাওয়ার জন্য। তিনি ছিলেন ষষ্ঠ মুঘল সম্রাট।

১১। আজকে আমরা যেই শ্যাম্পু ব্যবহার করি চুলের যত্নে তা মুঘল কেমিস্ট দীন মুহাম্মদের আবিষ্কার করা।

১২। সম্রাট আকবর মুঘলদের মধ্যে সবচেয়ে জনপ্রিয় ও সফল ছিলেন। তার সফলতার জন্য তাকে “আকবর-দি গ্রেট” বলে ডাকা হত। কিন্তু তিনি ছিলেন ডিস্লেক্সিয়ায় আক্রান্ত।

১৩। বাবর শুধুমাত্র একজন সম্রাজ্যবাদি সফল যোদ্ধাই ছিলেন না, তিনি কবি এবং সাহিত্যমনা একজন মানুষ ছিলেন।

১৪। মুঘল সম্রাজ্যে ভারতের অনেক শিল্পের বিকাশ ঘটে। মুঘলরা ভারতবর্ষের শুধু উন্নতিই করেনি তারা ভারতকে তাদের শিল্প কলাও উপহার দিয়েছে।

১৫। সম্রাট আকবরের ৩৬ জন স্ত্রী ছিল এবং তার হারেমে ৩০০ জনেরও বেশী সেবিকা ছিল।

১৬। শাহজাহান তাজ মহল নির্মাতাদের হাত কাটেননি। একটা বহুল প্রচলিত ঐতিহাসিক মুখরোচক গুজব হল যে সম্রাট শাহজাহান তাজমহল বানাতে যেইসব নির্মাতা কাজ করেছে তাদের সবার হাত কেটে দিয়েছেন কিন্তু এই তথ্য সম্পুর্ন মিথ্যা ও বানোয়াট।

 

প্রতিটা সম্রাজ্যেরই ভালো এবং মন্দ দুইটা দিকই আছে। এই আরটিকেলের উদ্দেশ্য ইতিহাসের বিচার করা ছিল না, উদ্দেশ্য ছিল মুঘলদের সম্পর্কে কিছু মজার তথ্য আপনাদের সামনে তুলে ধরার। আশা করি পড়ে মজা পেয়েছেন। এরকম আরো আর্টিকেল পেতে আমাদের সাথেই থাকুন। ধন্যবাদ।

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *