মোটিভেশন এবং মোটিভেশনাল স্টোরি কি এবং কেন? what is motivational Story and why do we need it?

what is motivational story?

আমরাই প্রায়ই মোটিভেশনাল স্টোরি শুনি। অনেক বক্তার কথায় হারিয়ে যাই। নিজের ভিতরেই একটা অদৃশ্য শক্তি অনুভব করি । কিন্তু কি এই মোটিভেশনাল স্টোরি ? কেন আমরা এমন অনুভব করি? আমরা কি কখনো ভেবে দেখেছি ?? আসলে প্রতিটা মোটিভেশনাল স্টোরি হচ্ছে কিছু “লুজারের গল্প” যারা নিজের পরিশ্রমে নিজের কপাল থেকে লুজার শব্দ টা মিটিয়ে “সাকসেসফুল” কথাটা লিখিয়ে নিয়েছেন। কিংবা কোন একজন মানুষ যিনি এক্সট্রিম কোন বাজে অবস্থা থেকে নিজেকে টেনে এনেছেন উচ্চতার শিখড়ে কিংবা এমন কোন অবস্থায় যেখানে তার থাকার কথা না।

আমরা মানুষেরা সব সময়ই না পাওয়ার দুঃখে ভুগি । খুব কমই মনেহয় মানুষ আছেন যারা তাদের এক্সপেক্টশন এর বন্ধন থেকে মুক্ত করতে পেরেছেন। যতক্ষন পর্যন্ত আপনার অভাব থাকবে ততক্ষন আপনার মোটিভেশন এর দরকার পরবে। কিছু পাওয়ার ইচ্ছা ,কিছু হওয়ার ইচ্ছা , নিজের অবস্থা থেকে তৈরি হওয়া হতাশাসবার মাঝেই কাজ করে। আমাদের সে আবেগ গুলো আমাদের উপর এতই প্রভাব বিস্তার করতে থাকে যে আমরা এমন অবস্থায় থাকিনা যেখান থেকে চাইলেই আমরা বের হয়ে আসতে পারি। আমদের এই নেগেটিভ আবেগ গুলো পসেটিভ কাজের বাধা হয়ে দাঁড়ায়। একটা সময় মনে হতে থাকে আসলে আমার দ্বারা হয়তো কিছুই সম্ভব না। আমি হয়তো পারবোনা। আমাকে দিয়ে হবেনা। এই অবস্থা থেকে বেরিয়ে আসার বোধহয় আর কোন উপায়ই নেই।

কিন্তু যখন আপনি দেখবেন আপনার চেয়েও লুজার কেউ এমন কিছু করে ফেলেছে যা এখন আপনার কাছে স্বপ্ন। তখন আপনি প্রেরনা পাবেন। আমার মতে মোটিভেশনাল স্পিকারের কথায় , ভিডিওতে , লেখাতে কোন মোটিভেশান নেই । আপনার মোটিভেশান আপনার নিজের ভিতর । আপনাকে নিজেকেই তৈরি করে নিতে হবে বা খুজে নিতে হবে। এক্ষেত্রে সেই স্পিচ, লেখা এবং কথা গুলো আপনার মোটেভেটিং পরিবেশের একটা অংশ হবে। কিন্তু সে লেখা বা ভিডিও আপনার মোটিভেশনের উৎস নয়। এটা ভেবে নিলে আপনার মোটিভেশন ভিডিও কিংবা লেখা নির্ভর হয়ে যাবে। যখন ভিডিও দেখবেন বা স্টোরি শুনবেন তখন হয়তো মোটিভেটেড ফিল করবেন।ভিডিও শেষ মোটিভেশানও শেষ হয়ে যাবে। কিন্তু মোটিভেশান যদি আপনার ভিতরে তৈরি হয় তবে সেটা আপনি যতদিন পৃথিবীতে থাকবেন ততদিনই আপনাকে মোটিভেট করবে। হয়তো একসময় আপনাকে দেখেও কেউ তার মাঝে মোটিভেশান তৈরি করবে। জীবনে সুখ শান্তি এবং সবচেয়ে বড় যে ব্যাপার “সন্তষ্টি” ফিরে আসবে।

তাই “আগামীর বাংলা” কোন স্টোরি , ভিডিও দিয়ে মোটিভেট করতে চাইবেনা। বরং আপনার মোটিভেশানের জন্য তৈরি করা পরিবেশের একটি অংশ হওয়ার চেষ্টা করবে। চেষ্টা করবে এমন কিছু করার যা শুধু থিউরিটিকাল পেপটক হবেনা। মনের গহীনে আপনাকে চিন্তা করার খোড়াক যোগাবে। আশাকরি আপনাদের সহায়তা থাকবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *