সকালের যে অভ্যাসটি আপনার কর্মদক্ষতা শেষ করে দিচ্ছে!

সারারাত একটি রিফ্রেশিং ঘুমের পর আমরা অনেকেই সকালে আমাদের একটি বাজে অভ্যাসের জন্য সকাল তথা সারাটি দিনই মাটি করে দেই। এমনকি এ অভ্যাসটি ধীরে ধীরে আমাদের কর্মদক্ষতা নষ্ট করে দিচ্ছে। তাই সকালের এই ভয়ানক অভ্যাসটি সম্বন্ধে এবং এর থেকে পরিত্রানের উপায় জানবো আজকের আর্টিকেলে ।

ফোন
অনেকেই তাদের ফোনটি এলাম ঘড়ি হিসেবে ব্যবহার করে থাকেন। এটা খুবই লজিক্যাল যে আপনি যদি আপনার ফোনটি এলার্ম ঘড়ি হিসেবে ব্যবহার করে থাকেন তাহলে এটা বিছানার পাশে রাখতে হবে আর আপনি যদি সকালে অ্যালার্ম বন্ধ করার ছলে আপনার সোশ্যাল মিডিয়া এবং ইমেইল চেক করতে থাকেন তাহলে এগুলোই আপনার উদ্বেগ ও দুশ্চিন্তা ও রাগের কারণ হতে পারে, তাই দিনের শুরুতেই সোশ্যাল মিডিয়া এবং ইমেইল চেক করা উচিত নয় ।সাধারণত এগুলো আপনাদের দিনের শুরুতেই দুশ্চিন্তাগ্রস্থ করে তোলে

নেতিবাচক চিন্তা ভাবনা

একজন মনোবিজ্ঞানীর মতে আমাদের স্মার্টফোনগুলো আমাদের মধ্যে অনেক নেতিবাচকতা সৃষ্টি করতে পারে। যদি ধীরে ধীরে জেগে উঠার পরিবর্তে ,প্রতিদিন সকালে আপনি আপনার ফোন নিয়ে ঘাটাঘাটি করে বিছানা ছাড়েন তাহলে তাৎক্ষণিকভাবে আপনি সোশ্যাল মিডিয়া এবং ইমেইলের সেই সমস্ত কাজ গুলি সম্পর্কে চিন্তা করবেন এবং আপনার চাপের মাত্রা বৃদ্ধি পেতে থাকবে, এমন কি আপনি সঠিক ভাবে জাগ্রত হওয়ার আগেই আপনি যে বার্তা বা ইমেইলগুলো পেয়েছেন তার জন্য আপনি সারাদিনই একটি প্যানিক এর মধ্যে থাকতে পারেন।তাছাড়া দিনটি এমন করে শুরু হওয়ার কারণে আপনি সারাদিনই বিরক্তিকর ভাব এবং অনেক নেতিবাচকতাই ভুগবেন। আর এই নেতিবাচকতার হাত থেকে রক্ষা পাওয়ার জন্য নিচের টিপস গুলো ফলো করতে পারেন।

পজিটিভিটি

আপনি কি এই নেতিবাচক অভ্যাস ভাঙতে চান এবং জেগে ওঠার মুহূর্ত থেকে ইতিবাচক মনোভাব বজায় রাখতে চান? তাহলে আপনার ফোনটি সকালে ঘুম থেকে ঊঠার সময় হাতের নাগালের বাইরে রাখতে হবে। এছাড়াও আপনি যখন জেগে উঠবেন তখন এই ছোট কয়টি পদক্ষেপ নিতে পারেন: দশটি গভীর শ্বাস নিন এবং বিছানা থেকে বের হওয়ার আগে কিছু ইতিবাচক চিন্তা করুন। “আজকের দিনটি অনেক ভালো যাবে” অথবা “আমি যা চাচ্ছি তা বাস্তবায়ন হতে যাচ্ছে” এসব কথাই আপনার মনোবল কে আরো উন্নত করবে। অথবা সময় থাকলে অল্প কিছুক্ষন মেডিটেশন করুন, এর জন্য আপনি অনলাইনে অনেক ভাল কিছু মেডিটেশান এ্যাপ পাবেন। এসব ক্ষুদ্র ক্ষুদ্র কাজই আপনার মস্তিষ্কের মধ্যে এক প্রকার পার্থক্য সৃষ্টি করবে এবং আপনাকে সকল প্রকার কাজের মধ্যে একপ্রকার মনোবল সৃষ্টি করবে।

আশাকরি এই ছোট একটি অভ্যাস পরিবর্তন আপনার জীবনে বড় কিছু এচিভমেনট বয়ে আনবে। নিয়মিত আমাদের পোস্ট গুলো পেতে আমাদের সাথে ফেসবুক এবং টুইটারে সংযুক্ত থাকুন। এবং প্রতিদিন ভিসিট করুন আমাদের সাইট আগামীর বাংলা

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *